October 3, 2018
সাতক্ষীরা শহরে গভীর রাতে আবারও সশস্ত্র বাহিনীর আনাগোনা: নিরাপত্তাহীনতায় সাধারণ মানুষ

আলোরপরশ নিউজঃ

একেরপর এক দা হাতে মুখ ঢাকা সন্ত্রাসী বাহিনীর মহড়ায় উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন শহরবাসী। গত ২৮ সেপ্টেম্বর পত্রিকা অফিসের কাজ শেষে বাড়ি ফিরে নিজ বাড়ির সামনেই ওই দা বাহিনীর সামনে পড়েন দৈনিক কালেরচিত্রের মফ:স্বল সম্পাদক মেহেদীআলী সুজয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একটি সেলাইরেন্স উদ্ধার করে। এঘটনায় সাতক্ষীরা সদর থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন ঘটনাস্থলের সম্মুখের বাসিন্দা সাংবাদিক হাফিজুর রহমান মাসুম।
ঘটনার ৩দিন অতিবাহিত হতে না হতেই গত ১ অক্টোবর গভীর রাতে আবারো ওই দা বাহিনীর হুমকির সম্মুখীন হয়েছেন এক নৈশ প্রহরী। তিনি পলাশপোল এলাকার বিলাল হোসেন।
ভুক্তভোগী বিলাল হোসেন জানান, তিনি প্রতিদিনের ন্যায় পলাশপোল হাইস্কুল থেকে নবজীবনের সামনের রাস্তায় পাহারা দিচ্ছিলেন। একপর্যায়ে নবজীবনের পিছন দিকে গেলে তিনি দুই ব্যক্তিকে নারিকেল গাছের নিচে লুকিয়ে থাকতে দেখেন। তিনি ‘কে ওখানে’ বলতেই দুই ব্যক্তি তার গলায় দা ধরে হত্যার হুমকি দিয়ে বলে, ‘আজ থেকে নাইটগার্ডের চাকরি ছেড়ে দিয়ে ভ্যান চালাবি, কাল থেকে তোকে যেন আর নাইটগার্ডের চাকরিতে না দেখি। তাহলে কিন্তু দুই ভাগ করে দেবো।’ সে সময় তারা বিলালের ব্যবহৃত মোবাইল ফোন কেড়ে নেয়। পরবর্তীতে কাকুতি মিনতির পরে তারা ফোনটি ফেরত দিয়ে চলে যায়। তিনি সে সময় আরো ৪/৫ ব্যক্তিকেও দা হাতে দেখেন। তবে তাদের প্রত্যেকের গামছা দিয়ে মুখ বাঁধা ছিলো, পায়ে কেডস, গায়ে কালো শার্ট, কালো প্যান্ট পরা ছিলো। এঘটনায় নৈশ প্রহরী বিলাল সন্ত্রস্ত হয়ে পড়েছে। এঘটনায় সাতক্ষীরা শহরে চরম আতংক বিরাজ করছে।
এদিকে পরপর দুইবার এধরনের ন্যাক্কারজনক ঘটনার এখনো পর্যন্ত কোন ক্লু উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ। এঘটনায় জনমতে আতংক সৃষ্টি হয়েছে। এলাকাবাসি অবিলম্বে ওই সন্ত্রাসী দা বাহিনীর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন।
এবিষয়ে সাতক্ষীরা সদর থানার পুলিশ পরিদর্শক (আইসিটি) আবুল কালাম আজাদ বলেন, বিষয়টি আমরা খুবই গুরুত্বের সাথে দেখছি। আশা করি দ্রুত ওই বাহিনীকে আইনের আওতায় আনতে পারবো।

Facebook Comments
More News


সম্পাদক ও প্রকাশক মো: জিল্লুর রহমান

বাসা ও অফিস: পুরাতন সাতক্ষীরা, যোগাযোগ: ০১৭১৬৩০০৮৬১ - e-mail: zsatkhira@gmail.com